স্কুলে ভর্তি হলো মাতৃগর্ভে গুলিবিদ্ধ সেই সুরাইয়া

রোববার (২ জানুয়ারি) সকালে মাগুরা পুলিশ লাইনস সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তাকে ভর্তি করেছেন পরিবার। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রোকসানা আক্তার।

জানা গেছে, ২০১৫ সালের ২৩ জুলাই মাগুরায় দুই দল সন্ত্রাসীর মধ্যে সংঘর্ষ চলাকালে এলোপাতাড়ি গুলিতে টিউবওয়েলের পাড়ে কাজ করা অবস্থায় গর্ভে থাকা সন্তানসহ নাজমা বেগম গুলিবিদ্ধ হন। মাগুরা সদর হাসপাতালের সার্জন শফিউর রহমানের জটিল অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে সুরাইয়া পৃথিবীর আলো দেখে। তবে জন্মের পর তার হার্টে ছিদ্র ধরা পড়ে।

সুরাইয়ার বর্তমান অবস্থা ব্যাখ্যা করতে গিয়ে তার মা নাজমা বেগম জানান, গুলির আঘাতে সুরাইয়ার ডান চোখটি একেবারেই নষ্ট হয়ে গেছে। বাম চোখের অবস্থাও ভালো না। চিকিৎসক বলেছেন, ডান চোখে আর দেখতে পাবে না সে। ডান চোখ তুলে না ফেললে বাম চোখও নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

তিনি আরও জানান, তার সম বয়সীরা এখন দৌঁড়ে বেড়ালেও সুরাইয়া এখনও দাঁড়াতেও পারে না। কেউ দুহাতে ধরে দাঁড় করিয়ে দিলেও সে পড়ে যায়। ইতোমধ্যে তার গলায় একটি টিউমারও ধরা পড়েছে। সুরাইয়ার ডান পাশটিতে জোর কমে যাচ্ছে। ডান হাতে সে কাজ করতে পারে না। চিকিৎসকেরা বলেছেন, সুরাইয়া উন্নত চিকিৎসা পেলেই ভালো হয়ে যাবে। কিন্তু আমাদের সেই অর্থনৈতিক ক্ষমতা নেই, যে তাকে উন্নত চিকিৎসা দেব। তারপরও আমরা তাকে স্কুলে ভর্তি করেছি। কারণ ওকে নিয়ে অনেক স্বপ্ন দেখি।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*